সর্বশেষ সংবাদ:
১৭২ শিক্ষার্থী পেলেন ‘প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক’ ‘হিন্দুয়োঁ কা হিন্দুস্তান’,’জয় শ্রীরাম’ স্লোগানে অগ্নিগর্ভ দিল্লি!‌ দিল্লিতে মসজিদে আগুন, মিনারে হনুমানের পতাকা সিলেটে প্রবাসী রোগির অর্ধেক অস্ত্রোপচার করে ‘ডাক্তার’ বললেন সরি! সিলেটে মুজিববর্ষের নামে ফুটপাত দখল দীর্ঘদিন পর ইনিংস ব্যবধানে টাইগারদের টেস্ট জয় চীনের বিকল্প বাজার খুঁজছে বাংলাদেশ: পরিকল্পনামন্ত্রী সুনামগঞ্জে ইভটিজিং-এর প্রতিবাদ করায় নাট্যকর্মীকে হত্যার হুমকি মুশির ডাবল, নাঈমের ঘূর্ণিতে চালকের আসনে বাংলাদেশ দেশের বিদ্যুৎ খাতে আরো জাপানি বিনিয়োগের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর ক্যারিয়ারের তৃতীয় ডাবল হাঁকালেন মি. ডিপেন্ডেবল ৫ দিনের রিমান্ডে পাপিয়া আনোয়ার ইব্রাহিম নয়, তার স্ত্রীই হচ্ছেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী! প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের পদত্যাগ কি লেখা ছিল সালমান শাহ’র সুইসাইড নোটে ‘সামিরা-শাবনূর দুইজনকে নিয়েই সংসার করতে চেয়েছিলেন সালমান’ পর্যটকদের মিলনমেলায় পরিণত তাহিরপুরের শিমুল বাগান দ্বিতীয় বিয়ে করতে এসে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী গ্রেফতার প্রভাবশালী ব্যক্তিদের অন্তরঙ্গ দৃশ্যের ভিডিও ক্লিপ উদ্ধার পাপিয়ার কাছ থেকে আমরা শহরের সকল সুবিধা গ্রামে দিচ্ছি : প্রধানমন্ত্রী

দ্বিপাল দে’র অকাল প্রয়াণে দলের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে : সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক

বিশেষ প্রতিবেদক, যুক্তরাজ্য :: “সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি দ্বীপঙ্কর কান্তি দে’র বাবা দ্বিপক কান্তি দে (দ্বিপাল) আজীবন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে ও শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অবিচল ছিলেন। তিনি ছিলেন আওয়ামী লীগের বিশ্বস্ত সহচর। তিনি ছিলেন এক উন্নয়ন পাগল ব্যক্তি। তিনি কলকলিয়া ইউনিয়নের উন্নয়নের জন্য স্থানীয় সাংসদ পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান এর নিকট ধারস্ত হতেন। যতোক্ষণ উন্নয়ন পাওয়া যেত না ততোক্ষণ পেছন ছাড়তেন না। তাঁর এই অকাল প্রয়াণে দলের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। যা কোনদিনই পূরণ হবার নয়।”

এমনটাই সিলেটের কণ্ঠ ডটকমে প্রেরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলছিলেন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক।

Advertisement

আরও পড়ুন : দ্বিপাল দে’র পরলোক গমনের খবর, হাসপাতালে নেতাকর্মীদের ঢল

জগন্নাথপুরের এ সন্তান দ্বিপাল দে’র আত্মার শান্তি কামনা করে বলেন, আমি দ্বিপাল দে’র প্রয়াণে হতগম্ব ও মর্মাহত। আমি তাঁর প্রয়াণে গভীর শোক প্রকাশ করছি। সেই সাথে শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।

আরও পড়ুন : বেঁচে নেই সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতির পিতা, পরিকল্পনামন্ত্রীসহ বিভিন্ন মহলের শোক

উল্লেখ্য, গত শনিবার (৫ অক্টোবর) রাত সাড়ে আটটার দিকে সিলেট নগরের নয়া সড়ক এলাকায় মাউন্ট এডোরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি দ্বীপঙ্কর কান্তি দে’র বাবা দ্বিপক কান্তি দে (দ্বিপাল) শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন।

Advertisement
Advertisement

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের অপশনে ক্লিক করুন

এ জাতীয় আরও সংবাদ 👇


Facebook Page


Scroll Up