সর্বশেষ সংবাদ:
মিরপুর ইউপি নির্বাচন : ‘ক্লিন ইমেজ’র মোস্তাকের সঙ্গে পারলেন না ফয়জুর মিরপুর ইউপি নির্বাচন : চমক দেখিয়ে মেম্বার নির্বাচিত ছাত্রলীগ নেতা মাহবুব মিরপুর ইউপি নির্বাচন : আনারসে ডুবলেন কাদির স্বজন হারানোর বেদনা আমি বুঝি, আবরারের বাবা-মাকে প্রধানমন্ত্রী মিরপুর ইউপি নির্বাচন : ৮ কেন্দ্রে ১৭৭৭ ভোটে এগিয়ে আনারস ৫ কেন্দ্রে আনারস ২৫০৩, নৌকা ১৫১৩ মিরপুর ইউপি নির্বাচন : আটঘরে জিতল আনারস শিশু তুহিন হত্যায় জড়িতদের গ্রেফতারের দাবিতে কাজী সমিতির সভা অনুষ্ঠিত মিরপুর ইউপি নির্বাচন : গড়গড়িতেও জিতলেন শেরীন মিরপুর ইউপি নির্বাচন : চাঁদবোয়ালীতে আনারসের বিপুল ভোটে জয় দিরাইয়ের শিশু হত্যার নেপথ্যে ‘পারিবারিক বিরোধ’, বাবা-চাচাসহ আটক ৬ শিশু তুহিনের শরীরে বিদ্ধ ছুরিতে দুইজনের নাম আবরারের বাবা, মা ও ভাই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গণভবনে গিয়েছেন। টাকার জন্য বন্ধুর স্ত্রী ও কন্যাকে খুন, ঘাতক গ্রেফতার প্রেমের প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় ৮ম শ্রেণির ছাত্রীকে ছুড়িকাঘাত মিরপুর ইউনিয়ন নির্বাচন : ব্যালট বক্স নিয়ে নৌকা সমর্থকের পালানোর চেষ্টা মীরপুর ইউনিয়ন নির্বাচন বয়কট করলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আবদুল কাদির মিরপুর ইউপি নির্বাচন : পুলিশ ও আনসারকে পেটালো নৌকার সমর্থক মা-সন্তানকে হত্যা করে বিকাশের ৮ লাখ টাকা লুট দিরাইয়ে ৫বছরের শিশুকে নৃশংস ভাবে খুন

দ্বিপাল দে’র অকাল প্রয়াণে দলের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে : সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক

বিশেষ প্রতিবেদক, যুক্তরাজ্য :: “সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি দ্বীপঙ্কর কান্তি দে’র বাবা দ্বিপক কান্তি দে (দ্বিপাল) আজীবন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে ও শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অবিচল ছিলেন। তিনি ছিলেন আওয়ামী লীগের বিশ্বস্ত সহচর। তিনি ছিলেন এক উন্নয়ন পাগল ব্যক্তি। তিনি কলকলিয়া ইউনিয়নের উন্নয়নের জন্য স্থানীয় সাংসদ পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান এর নিকট ধারস্ত হতেন। যতোক্ষণ উন্নয়ন পাওয়া যেত না ততোক্ষণ পেছন ছাড়তেন না। তাঁর এই অকাল প্রয়াণে দলের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। যা কোনদিনই পূরণ হবার নয়।”

এমনটাই সিলেটের কণ্ঠ ডটকমে প্রেরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলছিলেন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক।

আরও পড়ুন : দ্বিপাল দে’র পরলোক গমনের খবর, হাসপাতালে নেতাকর্মীদের ঢল

জগন্নাথপুরের এ সন্তান দ্বিপাল দে’র আত্মার শান্তি কামনা করে বলেন, আমি দ্বিপাল দে’র প্রয়াণে হতগম্ব ও মর্মাহত। আমি তাঁর প্রয়াণে গভীর শোক প্রকাশ করছি। সেই সাথে শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।

আরও পড়ুন : বেঁচে নেই সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতির পিতা, পরিকল্পনামন্ত্রীসহ বিভিন্ন মহলের শোক

উল্লেখ্য, গত শনিবার (৫ অক্টোবর) রাত সাড়ে আটটার দিকে সিলেট নগরের নয়া সড়ক এলাকায় মাউন্ট এডোরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি দ্বীপঙ্কর কান্তি দে’র বাবা দ্বিপক কান্তি দে (দ্বিপাল) শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের অপশনে ক্লিক করুন

এ জাতীয় আরও সংবাদ 👇