দক্ষিণ সুনামগঞ্জে মিথ্যা সংবাদের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব সংবাদদাতা::  দক্ষিণ সুনামগঞ্জের পূর্ব বীরগাঁও ইউনিয়নের ধরমপুর গ্রামের এক ওমান প্রবাসীর জায়গা জবরদখল ও মিথ্যা সংবাদের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভোক্তভোগী প্রবাসী আলহাজ্ব মাওলানা নজরুল ইসলাম।

রবিবার বিকাল ৩টায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার শান্তিগঞ্জস্থ দক্ষিণ সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের অস্থায়ী কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে গত ২৪ আগস্ট ২০১৯ ইং তারিখে অনলাইন সহ এক দুটি পত্রিকায় ওমানের ভিসা দিয়ে বাড়ীর দলিল জিম্মি করে পরিবারকে উচ্ছেদ করতে বসতঘর ভাংচুর করার নামে যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে তা ভিত্তিহীন ও বানোয়াট এই সংবাদের তীব্র নিন্দা জানাই। এটা একেবেরেই মনগড়া বানোয়াট ঊদ্দেশ্য প্রনোদিত একটি সংবাদ। আমার স¤পর্কে বলা হয়েছে  আমি আদম ব্যবসায়ী, এর কোন প্রমাণ কেউ দিতে পারবে না। এ কথা উল্লেখ করে সংবাদ প্রকাশ করায় আমার ব্যাপক মান সম্মানের হানী হয়েছে। এই দালালীর বিষয়টি প্রমাণ না দিতে পারলে ভবিষ্যতে আমি আইনি ব্যবস্থা নেব। সেই সাথে সংবাদে বলা হয়েছে আমি আমার বড় ভাই আব্দুস সালামের ছেলে আসাদকে ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা চুক্তিতে বাড়ির দলিল বন্ধক রেখে ওমানে পাঠিয়েছি সেই কথার কোন যুক্তি নাই। আমি আমার ভাইয়ের জায়গার দলিল জিম্মি করি নাই।

প্রকৃত পক্ষে আমার বড় ভাই আব্দুস সালাম গত ১২.০২.২০০১ সালে বীরগাঁও মৌজার জে এল নং-২৫০, খতিয়ান নং-২৬৫, ৬৩৯৪ দাগে বাড়ি রকম ভূমি ১০৩৬ নং রেজিষ্টারী দলিল মূলে ৮শতক জায়গা আমার কাছে বিক্রি করেছেন। যা আমি আমার পরিবারের লোকজনের চলাচলের রাস্তার জন্য রেখে ছিলাম। তিনি বলেন, আমি প্রবাসে থাকার সুবাধে আমার ভাই বাতিজা জোরপূর্বক জবরদখল করে আমার চলাচলের রাস্তায় বসতঘর সহ ঘরের বারিন্দা নির্মাণ করেন। প্রবাসে থাকা অবস্থায় তাদেরকে অনেক বাঁধা নিষেধ করেও কোন ফায়দা হয়নি।

পরবর্তীতে আমি প্রবাস থেকে ছুটি নিয়ে দেশে আসলে এলাকার লোকজন ও আমার আতœীয় স্বজনদের নিয়ে তাদেরকে আমার চলাচলের রাস্তায় নির্মীত বারান্দা সরানোর জন্য বললেও তাঁরা আমাকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি দামকি দিয়ে লাঞ্চিত করে। পরে আমার সাথের ভাই বাতিজারা আমাদের পরিবারের চলাচলের রাস্তায় বারান্দাটি ভেঙে ফেলে দিয়ে রাস্তা বের করে দিয়েছেন। একটি কুচক্রী মহল আমার সহজ সরল ভাইকে প্ররোচনা দিয়ে আমার বিরোদ্ধে মিথ্যা সংবাদ ও থানায় মিথ্যা অভিযোগ দিতে বাধ্য করেছে। আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের অপশনে ক্লিক করুন 👎👎👎

এ জাতীয় আরও সংবাদ 👇